পটুয়াখালীতে ঋণের টাকা না দেওয়ায় অফিসে ডেকে নিয়ে গ্রাহককে নির্যাতন

শেয়ার করুনঃ

পটুয়াখালী প্রতিনিধি :: এনজিও ‘আশা’ থেকে নেয়া ঋণের ৬০০ টাকা না দেয়ায় আবু সালেহ হাওলাদার(৪০) নামের এক দিনমুজুরকে অফিসে ডেকে নিয়ে মারধরের অভিযোগ পাওয়াগেছে। বুধবার বেলা ১২ টার দিকে আশা’র পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার খালগোড়া শাখা কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আশা’র সংশ্লিষ্ট শাখার ব্যবস্থাপক দেলোয়ার হোসেন সহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনের নামে রাঙ্গাবালী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে নির্যাতনের শিকার আবু সালেহকে গুরুতর আহত আবস্থায় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়ছে।

নির্যাতনের শিকার আবু সালেহ জানান, বছর দুয়েক আগে আশা থেকে ৪০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছি। নিয়মিত কিস্তি পরিশোধের মাধ্যমে সব টাকাই দিয়ে দিছি। তারপরও মিথ্যা কথা বলে তারা আমার কাছে ১ হাজার ৬০০ টাকা দাবী করে। পরে আমার স্ত্রী তাদেরকে এক হাজার দিয়ে দিছে। কিন্তু তাতেও তাদের হয়নি। হিসেব খাতা দেখার কথা বলে বুধবার দুপুরে আমাকে অফিসে ডেকে নেয়। পরে ম্যানেজারের রুমের দরজা আটকে আমাকে মারধর করে। একপর্যায়ে চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করে।

নির্যাতনের শিকার আবু সালেহ এর স্ত্রী খাদিজা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, আমার স্বামীকে অফিসে ডেকে নিয়ে ম্যানেজার দেলোয়ার ও তার তিন জন স্টাফ মিলে মারধর করে। নির্যাতনের একপর্যায়ে আমার স্বামী মাটিতে লুটিয়ে পরলে তার বুকের ওপর ওঠে লাথি মারতে থাকে। আশে পাশের লোকজন না আসলে তাকে মেরেই ফেলতো।

এব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জ দেওয়ান জগলুল হাসান জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিব।’